Dhaka ০১:৪৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ




কবর থেকে লাশ উত্তোলন করে কাফন চুরি

রাজশাহীর বাঘায় সুকোদা বেওয়া নামে এক বৃদ্ধার দাফন করা লাশ কবর থেকে উত্তোলন করে কাফন চুরির ঘটনা ঘটেছে। গতকাল শনিবার আড়ানী পৌরসভার চকরপাড়া কবরস্থানে এ ঘটনা ঘটেছে। সুকোদা বেওয়া আড়ানী চকরপাড়া গ্রামের মৃত ছলেমান হোসেনের স্ত্রী।

স্থানীয়রা জানায়, আড়ানী পৌরসভার চকরপাড়া গ্রামে সুকোদা বেওয়া (৯০) বৃহস্পতিবার  দুপুরে বার্ধক্যজনিত কারনে মারা যান। তাঁকে পারিবারিকভাবে জানাযা শেষে চকরপাড়া কবরস্থানে দাফন করা হয়। শনিবার ফজর নামাজ পরে তার মেঝ ছেলে জমির উদ্দিন মায়ের কবরের কাছে যান। কবরে দেওয়া বাঁশ উল্টানো ও খোঁড়া দেখতে পেয়ে স্থানীয়দের জানান। পরে কবর থেকে প্রায় ৩০০ মিটার উত্তর দিকে বাঁশের ঝাড়ের মধ্যে লাশ পড়ে থাকতে দেখেন। তবে যে কাফন দিয়ে তাঁকে দাফন করা হয়েছিল, কবরের মধ্যে বা লাশের শরীরের সাথে সেই কাফন নেই। পাঁচ টুকরো কাফনের মধ্যে বড় দুই টুকরো কাফন চুরি করে নিয়ে গেছে বলে দাবি করেন তাঁর ছেলেরা। পরে বাজার থেকে পুনরায় কাফন কিনে শনিবার সকালে ওই কবরে তাঁকে দাফন করা হয়।

এ বিষয়ে আড়ানী পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর চকরপাড়া গ্রামের লিটন হোসেন বলেন, বৃদ্ধার মৃত্যুর তিন বছর আগে তার স্বামী মারা গেছেন।ছেলেদের আওতায় ছিলেন তিনি। ছেলেরা তাঁকে দেখাশুনা করতো। মারা যাওয়ার পর তাঁকে গ্রামের কবরস্থানে দাফন করি। সকালে দেখি তাঁর কবর থেকে লাশ উঠানো এবং তার শরীরে কাফন নেই। বিভিন্নস্থানে খুঁজে লাশ পাওয়া গেলেও কাফন পাওয়া যায়নি।




সুন্দরগঞ্জে দাঁড়িয়ে থাকা বাসে আরেক বাসের ধাক্কা, আহত ৭

x

কবর থেকে লাশ উত্তোলন করে কাফন চুরি

প্রকাশ: ০৩:৪৮:২০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২৪

রাজশাহীর বাঘায় সুকোদা বেওয়া নামে এক বৃদ্ধার দাফন করা লাশ কবর থেকে উত্তোলন করে কাফন চুরির ঘটনা ঘটেছে। গতকাল শনিবার আড়ানী পৌরসভার চকরপাড়া কবরস্থানে এ ঘটনা ঘটেছে। সুকোদা বেওয়া আড়ানী চকরপাড়া গ্রামের মৃত ছলেমান হোসেনের স্ত্রী।

স্থানীয়রা জানায়, আড়ানী পৌরসভার চকরপাড়া গ্রামে সুকোদা বেওয়া (৯০) বৃহস্পতিবার  দুপুরে বার্ধক্যজনিত কারনে মারা যান। তাঁকে পারিবারিকভাবে জানাযা শেষে চকরপাড়া কবরস্থানে দাফন করা হয়। শনিবার ফজর নামাজ পরে তার মেঝ ছেলে জমির উদ্দিন মায়ের কবরের কাছে যান। কবরে দেওয়া বাঁশ উল্টানো ও খোঁড়া দেখতে পেয়ে স্থানীয়দের জানান। পরে কবর থেকে প্রায় ৩০০ মিটার উত্তর দিকে বাঁশের ঝাড়ের মধ্যে লাশ পড়ে থাকতে দেখেন। তবে যে কাফন দিয়ে তাঁকে দাফন করা হয়েছিল, কবরের মধ্যে বা লাশের শরীরের সাথে সেই কাফন নেই। পাঁচ টুকরো কাফনের মধ্যে বড় দুই টুকরো কাফন চুরি করে নিয়ে গেছে বলে দাবি করেন তাঁর ছেলেরা। পরে বাজার থেকে পুনরায় কাফন কিনে শনিবার সকালে ওই কবরে তাঁকে দাফন করা হয়।

এ বিষয়ে আড়ানী পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর চকরপাড়া গ্রামের লিটন হোসেন বলেন, বৃদ্ধার মৃত্যুর তিন বছর আগে তার স্বামী মারা গেছেন।ছেলেদের আওতায় ছিলেন তিনি। ছেলেরা তাঁকে দেখাশুনা করতো। মারা যাওয়ার পর তাঁকে গ্রামের কবরস্থানে দাফন করি। সকালে দেখি তাঁর কবর থেকে লাশ উঠানো এবং তার শরীরে কাফন নেই। বিভিন্নস্থানে খুঁজে লাশ পাওয়া গেলেও কাফন পাওয়া যায়নি।