Dhaka ০৯:২৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ




সাঘাটায় ভাগ্নের বিয়েতে মারামারি থামাতে গিয়ে খালার মৃত্যু

প্রতীকী ছবি

গাইবান্ধার সাঘাটায় ভাগ্নের বিয়ে অনুষ্ঠানে এসে মারামারি থামাতে গিয়ে প্রতিপক্ষের হাতের  ধাক্কায় খালা রওশন আরা (৬৫) নামে এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে।

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, সাঘাটা  উপজেলার ঘুড়িদহ ইউনিয়নের যাদুরতাইড়  চৌধুরী পাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল ওহাবের ছেলে রাশেদ মিয়ার বিয়ে অনুষ্ঠানে আসেন পাশ্ববর্ত ী মথরপাড়া গ্রামের মৃত কুদ্দুছ মিয়ার স্ত্রী রওশন আরা। উক্ত বিয়ে অনুষ্ঠানে সাউন্ড সিস্টেমের এমপ্লিফায়ার হারিয়ে যায়। রাশেদ মিয়া, একই গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে সমাপ্ত ইসলামকে চোর সন্দেহ করায় উভয় পরিবারের মধ্যে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়।

বৃহস্পতিবার  সন্ধ্যায় সমাপ্ত  ইসলামের আত্মীয় হান্নান মুন্সি ও শরিফুল ইসলাম সহ ১০/১২ জনের একটি দল ক্ষিপ্ত হয়ে লাঠি ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে রাশেদ মিয়ার বাড়িতে হামলা চালায়।  এ সময় রওশন আরা বাঁধা দিলে হান্নান মুন্সি হাত দিয়ে সজোরে ধাক্কা দিলে তিনি মাটিতে পড়ে যায়।

এসময় তিনি গুরুতর আহত হলে প্রথমে সাঘাটা  স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি  করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে বগুড়া জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার তিনি মারা যান।

এ ঘটনায় শুক্রবার সকালে সাঘাটা থানা অফিসার ইনচার্জ মমতাজুল  হক ও এ এস আই শাহাজাহান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। সাঘাটা থানা অফিসার ইনচার্জ মমতাজুল হক বলেন, একটি অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ট্যাগ :




বামনডাঙ্গায় বুড়িমারী এক্সপ্রেস ট্রেনটি যাত্রা বিরতির দাবিতে মানববন্ধন

x

সাঘাটায় ভাগ্নের বিয়েতে মারামারি থামাতে গিয়ে খালার মৃত্যু

প্রকাশ: ০৮:৩৭:১৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

গাইবান্ধার সাঘাটায় ভাগ্নের বিয়ে অনুষ্ঠানে এসে মারামারি থামাতে গিয়ে প্রতিপক্ষের হাতের  ধাক্কায় খালা রওশন আরা (৬৫) নামে এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে।

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, সাঘাটা  উপজেলার ঘুড়িদহ ইউনিয়নের যাদুরতাইড়  চৌধুরী পাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল ওহাবের ছেলে রাশেদ মিয়ার বিয়ে অনুষ্ঠানে আসেন পাশ্ববর্ত ী মথরপাড়া গ্রামের মৃত কুদ্দুছ মিয়ার স্ত্রী রওশন আরা। উক্ত বিয়ে অনুষ্ঠানে সাউন্ড সিস্টেমের এমপ্লিফায়ার হারিয়ে যায়। রাশেদ মিয়া, একই গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে সমাপ্ত ইসলামকে চোর সন্দেহ করায় উভয় পরিবারের মধ্যে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়।

বৃহস্পতিবার  সন্ধ্যায় সমাপ্ত  ইসলামের আত্মীয় হান্নান মুন্সি ও শরিফুল ইসলাম সহ ১০/১২ জনের একটি দল ক্ষিপ্ত হয়ে লাঠি ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে রাশেদ মিয়ার বাড়িতে হামলা চালায়।  এ সময় রওশন আরা বাঁধা দিলে হান্নান মুন্সি হাত দিয়ে সজোরে ধাক্কা দিলে তিনি মাটিতে পড়ে যায়।

এসময় তিনি গুরুতর আহত হলে প্রথমে সাঘাটা  স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি  করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে বগুড়া জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার তিনি মারা যান।

এ ঘটনায় শুক্রবার সকালে সাঘাটা থানা অফিসার ইনচার্জ মমতাজুল  হক ও এ এস আই শাহাজাহান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। সাঘাটা থানা অফিসার ইনচার্জ মমতাজুল হক বলেন, একটি অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।