Dhaka ০৩:৪২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ




সুন্দরগঞ্জে যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় রোববার রাত ১১টার দিকে মটর সাইকেলযোগে বাড়ি ফেরার পথে রশি টেনে গতিরোধ করে জাহিদুল ইসলাম (৩৮) নাম এক যুবলীগ নেতাকে আটকিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও হাত-পায়ের রগ কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে রাতেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

সুন্দরগঞ্জ-বামনডাঙ্গা সড়কের শাখামারা ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। জাহিদুল উপজেলার সোনারায় ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি এবং তিনি পশ্চিম বৈদ্যনাথ গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে।

 



 

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানায়, রাত সাড়ে ১১টার দিকে জাহিদুল ও কবির মিয়া মোটরসাইকেলে বামনডাঙ্গা থেকে বাড়িতে যাচ্ছিলেন। পথে উপজেলার সুন্দরগঞ্জ-বামনডাঙ্গা সড়কের শাখামারা ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় পৌঁছিলে একদল দুর্বৃত্ত রশি টেনে তাদের মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে। এসময় হামলকারীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে জাহিদুলের শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে হাত ও পায়ের রগ কেটে দেয় এবং তার সাথে থাকা কবিরকে পিটিয়ে আহত করে। পরে স্থানীয় লোকজন এসে তাদের উদ্ধার করে প্রথমে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। পরে জাহিদুলের অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসক তাকে দ্রুত রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার ভোরে তিনি মারা যান।

সুন্দরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেএম আজমিরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা স্বীকার জানান, ইতিমধ্যে সন্দেহজনক চারজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

 



 

ট্যাগ :




বামনডাঙ্গায় বুড়িমারী এক্সপ্রেস ট্রেনটি যাত্রা বিরতির দাবিতে মানববন্ধন

x

সুন্দরগঞ্জে যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

প্রকাশ: ০৩:০১:৫২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ নভেম্বর ২০২৩

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় রোববার রাত ১১টার দিকে মটর সাইকেলযোগে বাড়ি ফেরার পথে রশি টেনে গতিরোধ করে জাহিদুল ইসলাম (৩৮) নাম এক যুবলীগ নেতাকে আটকিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও হাত-পায়ের রগ কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে রাতেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

সুন্দরগঞ্জ-বামনডাঙ্গা সড়কের শাখামারা ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। জাহিদুল উপজেলার সোনারায় ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি এবং তিনি পশ্চিম বৈদ্যনাথ গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে।

 



 

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানায়, রাত সাড়ে ১১টার দিকে জাহিদুল ও কবির মিয়া মোটরসাইকেলে বামনডাঙ্গা থেকে বাড়িতে যাচ্ছিলেন। পথে উপজেলার সুন্দরগঞ্জ-বামনডাঙ্গা সড়কের শাখামারা ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় পৌঁছিলে একদল দুর্বৃত্ত রশি টেনে তাদের মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে। এসময় হামলকারীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে জাহিদুলের শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে হাত ও পায়ের রগ কেটে দেয় এবং তার সাথে থাকা কবিরকে পিটিয়ে আহত করে। পরে স্থানীয় লোকজন এসে তাদের উদ্ধার করে প্রথমে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। পরে জাহিদুলের অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসক তাকে দ্রুত রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার ভোরে তিনি মারা যান।

সুন্দরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেএম আজমিরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা স্বীকার জানান, ইতিমধ্যে সন্দেহজনক চারজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে।