Dhaka ০৯:৫৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ




সাদুল্লাপুর উপজেলার নলডাঙ্গায় শয়নঘর থেকে কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার

গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলায় শয়নঘর থেকে জেসমিন আকতার (১৪) নামের এক কিশোররীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) সকালে উপজেলার নলডাঙ্গা পূর্ব খামার দশলিয়া পাতিল্লাকুড়াস্থ গ্রামের নিজ বাড়ির শয়নঘরের তীরের সাথে ওঁড়না পেঁচানো অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মৃত জেসমিন আকতার ওই গ্রামের দিনমজুর আব্দুল জলিলের মেয়ে

মৃতের স্বজন ও স্থানীয়রা জানান, মৃত জেসমিন আকতার দীর্ঘদিন ধরে মানসিক রোগে ভুগছিলেন।ঘটনার দিন তার বাবা মা বাড়ির বাইরে কাজ করতে যান। এরইমধ্যে সে পরিবারের সকলের অগোচরে নিজ বাড়ির শয়ন ঘরের তীরের সাথে নিজের ব্যবহূত ওঁড়না গলায় পেঁচিয়ে আত্নহত্যা করে। কিছুক্ষন পর তার মা বাড়িতে এসে ঘরের দরজা বন্ধ দেখতে পান। এমতবস্থায় দ্রুত দরজা খুলে মেয়ের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে চিৎকার দিলে আশেপাশের লোকজন দৌড়ে এসে জেসমিনের মরদেহ ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায় ।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশের সুরুতহাল রিপোর্ট প্রস্তুত করে ময়না তদন্তের লাশ থানায় নিয়ে যায়।

সাদুল্লাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ কে এম আজমিরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা রুজু করা হয়েছে। ময়না তদন্তের জন্য লাশ গাইবান্ধা আধুনিক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।




বামনডাঙ্গায় বুড়িমারী এক্সপ্রেস ট্রেনটি যাত্রা বিরতির দাবিতে মানববন্ধন

x

সাদুল্লাপুর উপজেলার নলডাঙ্গায় শয়নঘর থেকে কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশ: ০৪:৪২:৫১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০২৩

গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলায় শয়নঘর থেকে জেসমিন আকতার (১৪) নামের এক কিশোররীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) সকালে উপজেলার নলডাঙ্গা পূর্ব খামার দশলিয়া পাতিল্লাকুড়াস্থ গ্রামের নিজ বাড়ির শয়নঘরের তীরের সাথে ওঁড়না পেঁচানো অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মৃত জেসমিন আকতার ওই গ্রামের দিনমজুর আব্দুল জলিলের মেয়ে

মৃতের স্বজন ও স্থানীয়রা জানান, মৃত জেসমিন আকতার দীর্ঘদিন ধরে মানসিক রোগে ভুগছিলেন।ঘটনার দিন তার বাবা মা বাড়ির বাইরে কাজ করতে যান। এরইমধ্যে সে পরিবারের সকলের অগোচরে নিজ বাড়ির শয়ন ঘরের তীরের সাথে নিজের ব্যবহূত ওঁড়না গলায় পেঁচিয়ে আত্নহত্যা করে। কিছুক্ষন পর তার মা বাড়িতে এসে ঘরের দরজা বন্ধ দেখতে পান। এমতবস্থায় দ্রুত দরজা খুলে মেয়ের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে চিৎকার দিলে আশেপাশের লোকজন দৌড়ে এসে জেসমিনের মরদেহ ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায় ।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশের সুরুতহাল রিপোর্ট প্রস্তুত করে ময়না তদন্তের লাশ থানায় নিয়ে যায়।

সাদুল্লাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ কে এম আজমিরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা রুজু করা হয়েছে। ময়না তদন্তের জন্য লাশ গাইবান্ধা আধুনিক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।